শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২০ ১৪২৬   ০৯ শা'বান ১৪৪১

চট্টলার বার্তা

যে কারণে নখ কাটলে ব্যথা লাগে না

লাইফস্টাইল ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৬ মার্চ ২০২০  

নখ আমাদের শরীরেরই একটি অংশ। কিন্তু নখ কাটলে আমরা ব্যথা পাই না। অথচ শরীরে কোথাও কেটে গেলে বা আঘাত লাগলে ব্যথা অনুভব করি। কখনো কি ভেবেছেন কেন এরকম হয়?
নখ কাটলে ব্যথা লাগলে খুব বিচ্ছিরি হত, তাই না? কেউ তা হলে সহজে নখই কাটতে চাইত না।  আর সেই সুযোগে নখগুলো বড় বড় হয়ে এক ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হত। কেননা আঙ্গুলের নখ বছরে দুই ইঞ্চি হারে বাড়ে।

আমাদের শরীরে সব মিলে বিশটি নখ রয়েছে। নখগুলো মৃত কোষের সমন্বয়ে গঠিত বলে এদেরকে কাটতে কোনো ব্যথা অনুভূত হয় না। নখের উৎপত্তি চামড়া থেকে। আমাদের দেহে কেরাটিন নামের এক বিশেষ পদার্থ দিয়ে নখ তৈরি হয়। কেরাটিন একধরনের মৃত প্রোটিন। একেবারে আঙ্গুলের চামড়ার ভেতরে নখের শুরু। নখের নিচের চামড়া শরীরের অন্য যেকোনো অংশেরই চামড়ার মতো। তবে এ চামড়ায় রয়েছে একপ্রকার নমনীয় তন্তু। এই তন্তুগুলো নখের সঙ্গে আটকে থাকে এবং নখগুলোকে নির্দিষ্ট স্থানে রাখে। 

সাধারণত নখ হয় খুব পুরু কিন্তু চামড়ার ভেতরে এর গোড়াটি হয় খুব পাতলা। নখের গোড়ার কাছাকাছি অংশটিও সাদা ও অর্ধবৃত্তাকার হয়। একে লুনিউল বলে।

মেয়েদের সুন্দর হাতের সঙ্গে সঙ্গে সুন্দর নখও অনেকের দৃষ্টি কাড়ে। সৌন্দর্য-সচেতন মেয়েরা হরেক রঙে তাদের নখগুলো রাঙিয়ে রাখে। তাই বলে নখ কেবল শরীরের শোভাবর্ধনই করে না, এ আমাদের শরীরের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়। নখকে সুন্দর ও আকর্ষণীয় করে রাখতে হলে এর বিশেষ যত্নের প্রয়োজন।

নখ কিন্ত খুব হালকা। সহজেই ভেঙে যায়। পুষ্টিকর খাবারের অভাবে নখ খুঁতযুক্তও হতে পারে। পুড়ে গেলে বা কেটে গেলে সারাজীবনের জন্যে নখ নষ্ট হয়ে যায়।

কেবল মানুষেরই নয়, কিছু জীবজন্তুরও নখ রয়েছে। শিম্পাঞ্জির ও বাঁদরের নখ হুবহু মানুষের নখের মতোই। এছাড়া সিংহ, চিতা, বিড়াল এবং কুকুরেরও নখ রয়েছে। গাভী, ষাঁড়, ঘোড়া প্রভৃতি জীবজন্তুর পায়ের খুরও একরকমের নখই।

চট্টলার বার্তা
চট্টলার বার্তা