শনিবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১১ ১৪২৬   ২৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

চট্টলার বার্তা
১৫

ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচন চলছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

প্রকাশিত: ১২ ডিসেম্বর ২০১৯  

ব্রিটেনে চলছে দেশটির সাধারণ নির্বাচন। বৃহস্পতিবার দেশটির স্থানীয় সময় সকাল ৭টা থেকে শুরু হয়েছে ভোটগ্রহণ যা চলবে রাত ১০টা পর্যন্ত। 

অবশেষে কে নিতে যাচ্ছেন ব্রিটেনের দ্বায়িত্ব? এই প্রশ্নের উত্তর অনেকেরই অজানা। বুধবার পর্যন্ত করা জরিপে দেখা গেছে, ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি ও টোরি দল অল্প ব্যাবধানে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে পারে। তবে জয়ের আশা ছাড়তে নারাজ লেবার পার্টিও।  

এক জনমত জরিপ অনুসারে বৃহস্পতিবারের ভোটের পূর্বে নেতৃত্বে এগিয়ে ছিলেন বরিস জনসন। তবে কিছু ক্ষেত্রে মনে হয়েছে লেবার পার্টিও নেতৃত্বে এগিয়ে যেতে পারে। ব্রিটেনের নির্বাচনী ফলাফল সম্পর্কে তাই অনেকেই অনিশ্চিত হয়ে আছে। ফলাফল অনুমান করা বেশ কঠিন হয়ে পড়েছে সেখানে। 

বুধবার রয়টার্সের প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী জনসনের বিজয়ের পথে এগিয়ে থাকার বিষয়টি আবারো কিছুটা পিছিয়ে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

বৃহস্পতিবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ, লেবার ও টোরি পার্টি হলেও পিছিয়ে নেই বাকি দলগুলোও। কাউকে ছোট করে দেখার উপায় নেই এখানে। 

নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা থেকে শুরু করে এর প্রচারণার সব জায়গায় ব্রেক্সিটকে প্রাধান্য দিয়েছেন জনসন। অপরদিকে করবিন বলেছেন দেশটির স্বাস্থ্যসেবা ও শিক্ষার ব্যয় বৃদ্ধি ও রাষ্ট্রের ভূমিকা বাড়ানোর নীতিগুলোতে জোর দেবেন তিনি।

ব্রিটেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ করবে নাকি থেকে যাবে শুধুমাত্র এর ফলাফলই নয় বরং দেশটির ভবিষ্যৎ অর্থনৈতিক অগ্রগতির অবস্থাও জানা যাবে আজকের নির্বাচনের মাধ্যমে। 

তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ছাড়লে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা যেতে পারে ব্রিটেনে। 

নিঃসন্দেহে আজকের নির্বাচনের উপর নির্ভর করছে ব্রিটেনের ভবিষ্যৎ। তবে এখন সবচেয়ে বড় প্রশ্ন হল কে নেবে ব্রিটেনের আগামী দিনগুলোর দ্বায়িত্ব। ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির নেতা বরিস জনসন নাকি লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন। নাকি এ দু'টি দলের কেউই পাবে না ব্রিটেনের দ্বায়িত্ব। 

যেকোনো সময়ে ঘুরে যেতে পারে সকল জরিপ ও অনুমানের ফলাফল। তাই নির্বাচনের ফলাফল জানতে অপেক্ষা করতে হবে শুক্রবার পর্যন্ত। 

সূত্র- বিবিসি, রয়টার্স 

চট্টলার বার্তা
চট্টলার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর