সোমবার   ০১ জুন ২০২০   জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭   ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

চট্টলার বার্তা
১৭৬

‘দলমতের ঊর্ধ্বে উঠে বৈশ্বিক দুর্যোগ করোনা মোকাবিলা করতে হবে’

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২০ মার্চ ২০২০  

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও নিজেদের এটি থেকে মুক্ত রাখতে পারেনি। ইউরোপের সব দেশ যাদের কারিগরি দক্ষতা, চিকিৎসাবিজ্ঞান, আর্থিক সক্ষমতা—সবকিছু আমাদের চেয়ে বেশি। এরপরও তারা এটি থেকে নিজেদের মুক্ত রাখতে পারেনি। সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশও নানা পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার, আমাদের দেশের পরিস্থিতি অনেক দেশের চেয়ে ভালো।’

শুক্রবার দুপুরে বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তথ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন। বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের মহাব্যবস্থাপক নিতাই কুমার ভট্টাচার্য মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন।

বৈশ্বিক দুর্যোগ করোনাভাইরাস মোকাবিলায় রাজনীতি ভুলে সবাইকে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেছেন, দলমতের ঊর্ধ্বে উঠে বৈশ্বিক দুর্যোগ করোনা মোকাবিলা করতে হবে। এটি নিয়ে রাজনীতি করা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। তথ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিএনপিসহ সব রাজনৈতিক দলের কাছে অনুরোধ করব এটি একটি বৈশ্বিক দুর্যোগ। আমরা সবাই মিলে রাজনীতি ভুলে জনগণের পাশে যেন দাঁড়াই।’

করোনা নিয়ে বিভিন্ন গুজব প্রসঙ্গে হাছান মাহমুদ বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একজন চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে একটি ভয়েস রেকর্ড ছাড়া হয়েছে। কথিত এই চিকিৎসক তাঁর আত্মীয়ের সঙ্গে কথা বলছেন। এটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কেন ও কীভাবে এল, এটাই প্রশ্ন। আসলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেওয়ার অর্থই হচ্ছে জনগণের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি করা।

গুজবে কান না দিতে দেশবাসীকে অনুরোধ জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, কারা গুজব রটাচ্ছে, তাদের শনাক্ত করতে সরকারের কারিগরি দল ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান কাজ করছে। যারা এসব করছে, তাদের শনাক্ত করে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপির পক্ষ থেকে প্রতিদিন ব্রিফিং করে করোনা নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে। সরকার কিছু করেনি, সরকার তথ্য গোপন করছে–এ ধরনের কথা বলা হচ্ছে। অথচ সরকারের পক্ষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে প্রতিদিন কী হচ্ছে, কতজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, কতজনকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে, কতজন চিকিৎসাধীন আছে—সবকিছু বলা হচ্ছে। এ ব্যাপারে সরকার অত্যন্ত আন্তরিকতা ও দ্রুততার সঙ্গে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। সরকারি নানা প্রোগ্রামসহ মুজিব বর্ষের সব কর্মসূচি স্থগিত করা হয়েছে। আমাদের দলের নানা কর্মসূচি স্থগিত করা হয়েছে। একই সঙ্গে কিছু নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি সংবাদ সম্মেলন করে যে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে, সেটির সঙ্গে যারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব রটাচ্ছে, দুটির মধ্যে যোগসূত্র আছে। আশা করব, কেউ এ ধরনের বিভ্রান্তি ছড়াবেন না এবং যাদের শনাক্ত করা হবে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রকে শিগগির টেরিস্টোরিয়াল কেন্দ্র হিসেবে উন্নীত করতে যাচ্ছি। এজন্য যন্ত্রপাতি কেনার কাজও প্রক্রিয়াধীন। সর্বোচ্চ ছয়মাস সময়ের মধ্যে বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রকে একটি পূর্ণাঙ্গ টেরিস্টোরিয়াল চ্যানেল হিসেবে শুরু করতে পারবো। এখন এটি স্যাটেলাইট চ্যানেল হিসেবে চালু আছে।

তিনি বলেন, দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম নগরী ও বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রাম। দেশের প্রধান সমুদ্র বন্দরের নগরী। যে বন্দর দিয়ে ৯০ শতাংশের বেশি পণ্য আমদানি-রপ্তানি হয়। এসব গুরুত্ব বিবেচনা করে এই অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালের ১৯ ডিসেম্বর বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্র চালু করেছিলেন। ধীরে ধীরে তিনি এটিকে একটি পূর্ণাঙ্গ টেলিভিশন কেন্দ্রে রূপান্তর করেছেন।

‘বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্র থেকে খুব শিগগির বাণিজ্যিক ও ইংরেজি সংবাদও আমরা চালু করতে যাচ্ছি। এজন্য কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আরেকটি স্টুডিও এবং অডিটোরিয়াম নির্মাণসহ কিছু দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ করা হচ্ছে। এছাড়া, ছোটোখাটো যেসব সমস্যা রয়েছে গুরুত্ব অনুযায়ী আমরা সেসব দ্রুত সমাধান করার চেষ্টা করবো’ বলেন তথ্যমন্ত্রী।

চট্টলার বার্তা
চট্টলার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর