শনিবার   ১৬ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ১ ১৪২৬   ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

চট্টলার বার্তা
সর্বশেষ:
ফোকফেস্টের পর্দা উঠছে আজ গাজায় ইসরায়েলি বর্বরতা চলছেই, নিহত বেড়ে ৩২ ইডেনে বাংলাদেশ-ভারত টেস্ট দেখতে হাসিনাকে চিঠি মোদির শুরু হলো আয়কর মেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের শীর্ষ পদে আলোচনায় যারা ‘দেশ ক্ষুধামুক্ত হয়েছে, এবার লক্ষ্য দারিদ্র্যমুক্ত করা’
৩৮২

ছদ্মবেশে ইউএনও, মাংস বিক্রেতার চোখ কপালে

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯ মে ২০১৯  

‘গরুর মাংসের এক দাম, কেজি ৭০০ টাকা।’ ‘আপনাকে ৫০ টাকা সম্মান করবো, ৬৫০ টাকা রাখবো।’ বৃহস্পতিবার (৯ মে) হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রুহুল আমিন ছদ্মবেশে গরুর মাংস কিনতে গেলে এভাবেই দুইজন বিক্রেতা দাম জানান।

এরপর ছদ্মবেশ খুলে ফেলেন ইউএনও। ততক্ষণে সব মাংস বিক্রেতার চোখ কপালে উঠে গেছে। মুহূর্তেই কমিয়ে দিলেন মাংসের দাম।

এখানেই শেষ নয়, বেশি দামে মাংস বিক্রি করায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে তিনজনকে আটক করা হয়। এর মধ্যে একজনের কাছ থেকে মুচলেকাসহ ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। দুইজন পুলিশের কাছে আটক রয়েছেন।

ইউএনও রুহুল আমিন বলেন, রমজানে বাড়তি চাহিদাকে পুঁজি করে গরুর মাংসের দাম বেশি নেওয়া হচ্ছে এমন খবর পেয়ে ছদ্মবেশে অভিযান চালাই হাটহাজারী বাসস্ট্যান্ড ও বাজারের বিভিন্ন মাংসের দোকানে। তিন দিন  আগে তাদের সঙ্গে বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছিল ৫০০ থেকে ৫৭০ টাকায় মান ভেদে মাংস বিক্রি করবেন। কিন্তু বাস্তবে তারা কথা রাখেনি। তাই আইনের কঠোর প্রয়োগ ছাড়া বিকল্প নেই।

চট্টলার বার্তা
চট্টলার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর