শনিবার   ২৮ মার্চ ২০২০   চৈত্র ১৪ ১৪২৬   ০৩ শা'বান ১৪৪১

চট্টলার বার্তা
২৭২

চন্দনাইশে স্থগিত কেন্দ্রের ভোট আরো দু’সপ্তাহ পেছালো 

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৭ এপ্রিল ২০১৯  

চন্দনাইশ উপজেলা নির্বাচনে স্থগিত ২ কেন্দ্রের পুনর্নির্বাচন দুই সপ্তাহ পিছিয়েছে। মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) করা রিটের শুনানি শেষে হাইকোর্টের বিচারপতি জেবিএম হাসান এ আদেশ দেন। আগামী ২ সপ্তাহের মধ্যে স্থগিত কেন্দ্রের ব্যাপারে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ারও নির্দেশ দেন আদালত। 

স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার আ ন ম বদরুদ্দোজা । 

আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী একেএম নাজিম উদ্দীন নির্বাচন স্থগিত চেয়ে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে এ রিট আবেদন দায়ের করেন।

জানা যায়, গত ২৪ মার্চ অনুষ্ঠিত চন্দনাইশ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্থগিত ২টি কেন্দ্রে আজ (১৭ এপ্রিল) পুনর্নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। স্থগিত কেন্দ্রগুলো হলো পূর্ব চন্দনাইশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও উত্তর বরকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র। 

কিন্তু আওয়ামী লীগ প্রার্থী একেএম নাজিম উদ্দীন নির্বাচন স্থগিত চেয়ে ১৬ এপ্রিল হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন। তিনি অভিযোগ করেন গত ৯ এপ্রিল বিকেলে আঞ্চলিক নির্বাচনী কর্মকর্তা মো. হাসানুজ্জামান স্থগিত ২টি কেন্দ্রের ব্যাপারে তদন্ত করেন। তদন্ত প্রতিবেদন ৩ কর্মদিবসের মধ্যে জমা দেয়ার কথা থাকলেও রহস্যজনক কারণে ১৭ এপ্রিল নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়। যে সময় নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হচ্ছিল সেসময় তার বক্তব্য গ্রহণ করা হচ্ছিল বলেও তিনি জানান। অথচ তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার পরে পুনর্নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করার কথা ছিল। এটিই তার প্রধান অভিযোগ বলে তিনি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

রিট আবেদনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার, নির্বাচন কমিশনার, সচিব নির্বাচন কশিমনার, অতিরিক্ত নির্বাচন অপারেশন- ২, স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল জব্বার চৌধুরী, ডেপুটি কমিশনার এন্ড আপিল অথরিটি, রিটানিং অফিসার, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা, সহকারী রিটার্নিং অফিসারসহ ৯ জনকে বিবাদী করা হয়। 

একেএম নাজিম উদ্দীনের পক্ষে রিট পিটিশন শুনানী করেন সাবেক বিচারপতি এড. ছৈয়দ সাইদুর রহমান। ৫নং প্রতিপক্ষ স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল জব্বার চৌধুরীর পক্ষে রিট আবেদন শুনানীতে অংশগ্রহণ করেন ব্যারিষ্টার রোকন উদ্দীন মাহামুদ। প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ অন্যান্য প্রতিপক্ষদ্বয়ের পক্ষে রিট আবেদন শুনানীতে অংশ নেন ব্যারিষ্টার তৌহিদুল আলম। রাষ্টপক্ষে শুনানীতে অংশগ্রহণ করেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল এড. মোতাহের হোসেন সাজু ও সহকারী এটর্নি জেনারেল এড. মাসুদ আলম চৌধুরী। শুনানী শেষে বিচারকদ্বয় চন্দনাইশ উপজেলার স্থগিত ২টি কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করে ২ সপ্তাহের জন্য সময় দিয়ে রুল জারি করেন। সেই সাথে স্থগিত ২টি কেন্দ্রের তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। সরকার পক্ষের আইনজীবি সহকারী এর্টনি জেনারেল এড. মাসুদ আলম চৌধুরী সাংবাদিকদের বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ।

উল্লেখ্য গত ২৪ মার্চ অনুষ্ঠিত নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল জব্বার চৌধুরীর (দোয়াত কলম) আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী একেএম নাজিম উদ্দীনের চেয়ে ২ হাজার ৬৩৪ ভোট পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন। এদিকে স্থগিত ২টি কেন্দ্রের মোট ভোটার ৪ হাজার ৪০৯ জন। ফলে এগিয়ে থাকা

প্রার্থীর ভোটের চেয়ে স্থগিত ২ কেন্দ্রের ভোটার বেশি হওয়ায় ফলাফলও স্থগিত হয়। আবদুল জব্বার চৌধুরী বেসরকারী ফলাফলে পেয়েছেন ২২ হাজার ২৮১ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি একেএম নাজিম উদ্দীন পেয়েছেন ১৯ হাজার ৬৪৭ ভোট।

চট্টলার বার্তা
চট্টলার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর