মঙ্গলবার   ০২ জুন ২০২০   জ্যৈষ্ঠ ১৮ ১৪২৭   ১০ শাওয়াল ১৪৪১

চট্টলার বার্তা
১২৭

করোনা মোকাবেলায় চট্টগ্রামের শতভাগ প্রস্তুতি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৯ মার্চ ২০২০  

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ও বিস্তার প্রতিরোধে শতভাগ প্রস্ততি রয়েছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন। 

রোববার (২৯ মার্চ) চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) দামপাড়া পুলিশ লাইন্সের কনফারেন্স হলে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ও বিস্তার প্রতিরোধ এবং আক্রান্ত ব্যক্তিদের ব্যবস্থাপনার বিষয়ে সমন্বয় সভায় এ প্রস্তুতির কথা জানায় করোনা মোকাবেলায় কাজ করা সরকারি বিভিন্ন দফতরের প্রতিনিধিরা।

সভায় করোনা মোকাবেলায় বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এসব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ও বিস্তার রোধ করা সম্ভব বলে মনে করেন সভায় অংশগ্রহণকারীরা।

সভায় করোনা মোকাবেলায় গৃহীত সিদ্ধান্তগুলোর মধ্যে রয়েছে সন্দেহজনক রোগীকে করোনা পরীক্ষা, করোনা আক্রান্ত হলে রোগীদের আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসা নিশ্চিত করা, করোনা মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা, সার্বক্ষণিক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তদারকি, কেউ করোনা আক্রান্ত হলে সেই রোগীকে অ্যাম্বুলেন্সে করে হাসপাতালে নেওয়াসহ আরও বেশ কিছু সিদ্ধান্ত।

এসব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে মাঠে কাজ করা পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, স্বাস্থ্য বিভাগসহ অন্যান্য দফতরের সঙ্গে সমন্বয় করার কথাও জানানো হয় সভায়। 

সভায় করোনা মোকাবেলায় স্থানীয় কাউন্সিলরসহ জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ত করার প্রস্তাব দেওয়া হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। 

সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমানের সভাপতিত্বে সমন্বয় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ও বিস্তার প্রতিরোধ এবং আক্রান্ত ব্যক্তিদের ব্যবস্থাপনার বিষয়ে শতভাগ প্রস্ততি রয়েছে পুলিশসহ সংশ্লিষ্টদের। আমরা সমন্বয় সভা করেছি। সভায় বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। করোনা আক্রান্ত হলে আমাদের করণীয় কী তা নিয়েও আলোচনা হয়েছে। এসব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা গেলে আশা করছি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে আমরা শতভাগ সক্ষম হবো।

সিএমপি কমিশনার বলেন, করোনা মোকাবেলায় স্থানীয় কাউন্সিলরসহ জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ত করার প্রস্তাব দেওয়া হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। আমরা চেষ্টা করছি সাধারণ মানুষ যাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখেন। আমরা পুলিশের পক্ষ থেকে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। বিদেশ ফেরতদের হোম কোয়ারেন্টিনে নিশ্চিত করতে আমরা তাদের বাসায় ওষুধসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দব্য পর্যন্ত পৌঁছে দিচ্ছি। এছাড়া পুলিশের পক্ষ থেকে অসহায় মানুষকে খাবার সামগ্রী দিয়ে সহায়তা করা হচ্ছে।

সমন্বয় সভায় সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) আমেনা বেগম, অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) এসএম মোস্তাক আহমেদ খান, অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) শ্যামল কুমার নাথ, বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবির, সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বী, জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক, জেলা প্রশাসনের প্রতিনিধিসহ সরকারি বিভিন্ন দফতরের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

চট্টলার বার্তা
চট্টলার বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর